জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সংবাদ

আরবের মহিলাদের মতো ভারতীয় মেয়েদেরও নিজের দেহ ঢেকে রাখা উচিৎ – মাতা মহাদেবী

ভারতে মহিলাদের উপর দিনের পর দিন যৌন নিপীড়ন বেড়ে যাওয়ার ঘটনায় চিন্তিত জগদগুরু মাতা মহাদেবী মন্ত্যব্য করেন যে, মেয়েদের উত্তেজক পোশাক পরা উচিৎ নয় এবং তাদের বেশী রাত পর্যন্ত বাইরে থাকাও সমীচীন নয়। তিনি বলেন, “আরব দেশের মহিলাদের মতো আমাদের দেশের মেয়েদের ক্ষেত্রেও আরবের পোশাক প্রযোজ্য হওয়া উচিত”।

মহাদেবী মহিলাদের উপর যৌন নিপীড়ন দিনের পর দিন বেড়ে যাওয়ায় চিন্তা প্রকাশ করে বলেন, মেয়েরা অনেক রাত পর্যন্ত বাইরে ঘোরাঘুরি করার কারণেই এধরনের ঘটনা বেশী ঘটছে। এই ঘটনার জন্য বিশেষ করে তাদের উত্তেজক পোশাককেই দায়ী করেন তিনি।

মাতা মহাদেবী ভারতীয় মেয়েদের পশ্চিমা পোশাক ত্যাগ করে, নিজ সংস্কৃতি এবং সভ্যতা অনুযায়ী পোশাক পরার অনুরোধ করেন। তিনি বলেন, সমাজে এই ধরণের কার্যকলাপ বেড়ে যাওয়ার পিছনে মেয়েরাও কিছুটা হলে দায়ী।

ব্যাঙ্গালোরে নতুন বছরের প্রাক্কালে ঘটিত নারী হেনস্থার ব্যাপারে আলোচনায় তিনি বলেন, “নতুন বছরে আনন্দ-উল্লাস করতে গিয়ে মেয়েদের উত্তেজক পোশাক পরা মোটেও উচিৎ না”। এই ধরণের আচরন পুরুষ সমাজকে উত্যক্ত করে বলেও তিনি মন্তব্য করেন। তিনি আরো বলেন, ভবিষ্যতে এই ধরনের ঘটনা থেকে বাঁচতে মেয়েদের নিজেকে ঢেকে রাখা উচিত এমনকি কলেজগুলিতেও মেয়েদের জন্য আরবের মেয়েদের মতো পোশাক চালু করা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়।

উল্লেখ্য যে, মাতা মহাদেবী কর্ণাটকের লিঙ্গায়ত সম্প্রদায়ের ধর্মগুরু। লিঙ্গায়ত কর্ণাটকের সব থেকে বড় জাতীয় সম্প্রদায় এবং মাতা মহাদেবী এই সম্প্রদায়ের সব থেকে বড় জগদগুরু। শুধু তাই নয় তিনি উত্তর কর্ণাটকে অবস্থিত ‘বাসব ধর্মস্থান’-এর প্রধান অধ্যক্ষের দায়িত্বেও রয়েছেন।

 

ইসলাম সন্ত্রাসবাদের উৎস নয় : অ্যাঙ্গেলা মারকেল

ইসলাম সন্ত্রাসবাদের উৎস নয় বলে মন্তব্য করেছেন জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মারকেল। তিনি বলেন, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সংগ্রামে মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশগুলোর সঙ্গে সহযোগিতা করা অত্যাবশ্যক। গত ১৯ ফেব্রুয়অরী মিউনিখে নিরাপত্তা বিষয়ক এক সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন। সম্মেলনে মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের উপস্থিতিতে সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্র প্রবেশে ডোনাল্ড ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞার সমালোচনা করেন মারকেল। এছাড়া তিনি বক্তৃতায় ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ), ন্যাটো এবং জাতিসংঘের মতো বহুজাতিক সংস্থাগুলোকে টিকিয়ে রাখা এবং শক্তিশালী করার ওপর জোর দেন। মারকেল বলেন, একসঙ্গে কাজ করলে সবাই শক্তিশালী হয়। আমাদের এটাও দেখতে হবে, বিভিন্ন জায়গায় বহুপাক্ষিক অবকাঠামোগুলো যথা যথভাবে কাজ করছে কি-না। রয়টার্স, আল-জাজিরা।

 

সহিংসতার সঙ্গে ইসলামের সম্পর্ক নেই : পোপ

সহিংসতার সঙ্গে ইসলামের সম্পর্ক নেই বলে মন্তব্য করে খ্রিস্টানদের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা পোপ ফ্রান্সিস বলেছেন, সহিংসতার সঙ্গে ইসলামকে জাড়ানোর চেষ্টা ঠিক নয়। পুঁজিবাদ এবং সামাজিক বিচারহীনতাই সন্ত্রাসবাদের মূল কারণ। পোল্যান্ডে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, খ্রিস্টান সন্ত্রাসবাদ নেই, ইহুদি সন্ত্রাসবাদ নেই এবং মুসলিম সন্ত্রাসবাদও নেই। এসব সন্ত্রাসবাদের অস্তিত্ব নেই। পোপ বলেন, সমান সুযোগ না পাওয়ার পরও দরিদ্র ও দরিদ্রতম মানুষদের সহিংসতায় অভিযুক্ত করা হচ্ছে। আগ্রাসনের ভিন্ন ভিন্ন রূপ ও সংঘাতের কারণে সন্ত্রাসবাদ বৃদ্ধি পাবে এবং এক সময় চরমরূপ নিতে পারে।

পোপ জানান, সব ধর্মই শান্তির কথা বলে। কিন্তু সব মানুষ ও ধর্মের মধ্যে মৌলবাদী ও সহিংস ব্যক্তি রয়েছেন। অসহিষ্ণুতার সরলীকরণের ফলে তারা আরো শক্তিশালী হয়ে উঠছে। বিশ্বের বেকারত্ব ও দুর্নীতি কমিয়ে আনারও আহ্বান জানান পোপ। এছাড়া বৈশ্বিক উষ্ণতা অস্বীকারের সমালোচনাও করেন তিনি। সূত্র- দ্যা গার্ডিয়ান।

 

নিউ ইয়র্কে আজ আমিও মুসলিমশীর্ষক বিক্ষোভ সমাবেশ

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ সাত দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদে নিউ ইয়র্কে ‘টুডে আই অ্যাম মুসলিম টু’ বা আজ আমিও মুসলিম শীর্ষক এক বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ২০ ফেব্রুয়ারী স্থানীয় সময় দুপুর ১২টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত টাইম স্কোয়ারে অনুষ্ঠিত এ সমাবেশ বিভিন্ন ধর্ম ও বর্ণের দশ সহস্রাধিক লোকের সমাগম ঘটে।

মুসলিমদের সমর্থনে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে অংশগ্রহণ করেন নিউ ইয়র্ক সিটি মেয়র বিল ডি ব্লাসিও। তিনি তার বক্তৃতার শুরুতে বলেন, ‘টুডে আই অ্যাম মুসলিম টু’। মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ সাত দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞার বিরোধীতাও করেন তিনি। দুই বছর বয়সী মেয়ে শার্লটকে নিয়ে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে যোগ দেন বিল ও হিলারি ক্লিনটনের মেয়ে চেলসি ক্লিনটন। বিক্ষোভে যোগ দিয়ে টুইটারে হিজাব পরা মার্কিনী নারীর ছবি পোস্ট করে চেলসিও বলেন, ‘টুডে আই অ্যাম মুসলিম টু’। এটা শার্লটের প্রথম র‌্যালি। বিক্ষোভ আয়োজনকারীদের মধ্যে ছিলেন হিপহপ তারকা রাসেল সিমন্স। এছাড়া সুসান সারান্দনের মতো তারকারাও তার সঙ্গে যোগ দেন। এ সমাবেশে প্রচুর সংখ্যক বাংলাদেশিও অংশ নেন। বিক্ষোভে অংশ নিয়ে তাঁরা বলেন, আমরা সর্বদাই মুসলমান। তাই মুসলমানদের উপর কোন অন্যায় আত্যাচার  কখনোই মেনে নেব না। মার্কিন মুসলিম নাগরিকদের উপর সকল প্রকার হয়রানী ও নির্যাতন অচিরেই বন্ধ করতে হবে। #

 

ইসলাম গ্রহণের পর এবার মদ নিষিদ্ধ করলেন নেলসন ম্যান্ডেলার নাতি

নেলসন ম্যান্ডেলার নাতি মেন্ডলা ম্যান্ডেলা ২০১৬ সালে ইসলামে ধর্মান্তরিত হওয়ার পর এবার তার খ্রিস্টান অধ্যুষিত গ্রামে এলকোহল ও মদ বিক্রি নিষিদ্ধ করেছেন। তবে, তার এ সিদ্ধান্তে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এলাকার মদ বিক্রেতা ও ক্রেতারা। মেন্ডলা ম্যান্ডেলা (৪২) তার এমভেজো গ্রামের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ২০০৭ সালে পিতামহ নেলসন ম্যান্ডেলা কর্তৃক তাকে এ পদে নিযয়োগ দেয়া হয়েছিল। গত বছরের গোড়ার দিকে তিনি রাবিয়া ক্লার্ক নামে এক মুসলিম নারীকে বিয়ে করেন এবং তাকে বিয়ের দুই মাস পূর্বে তিনি ইসলামে ধর্মান্তরিত হন। এলকোহল নিষিদ্ধের সিদ্ধান্তে বিক্রেতা ও ক্রেতাদের ক্ষোভের মুখে মেন্ডলা ম্যান্ডেলা দাবি করেছেন, তার এ সিদ্ধান্তের সঙ্গে তার ধর্মের কোনো সম্পর্ক নেই। তিনি বলেন, এলাকার পরিবারগুলোর উপর এলকোহলের ধ্বংসাত্মক প্রভাবের কারণেই এটি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। গত বছর মেন্ডলা জানিয়েছিলেন, ব্যক্তিগতভাবে তিনি ট্রাকযোগে এমভেজো গ্রামের মদের দোকানগুলোতে এলকোহল পরিবহন নিষিদ্ধ করতে চান।

ম্যান্ডেলা এমভেজো গ্রামে ‘জোসা’ উপজাতিরা বসবাস করেন। তাদের অধিকাংশই খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী। মেন্ডলা জানান, তার গ্রামে সব ধরনের এলকোহলের ডেলিভারি সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। #

 

কাতারের মহাসড়কের পার্শ্বে ও পার্কে নামায আদায়ের ব্যবস্থা

ভ্রমণরত মুসলিমদের সময় মতো নামায আদায়ের সুবিধার্থে কাতারের বিভিন্ন মহাসড়কের পার্শ্বে ও পার্কে একটি দাতব্য সংস্থার উদ্যোগে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। শায়খ থানি বিন আবদুল্লাহ ফাউন্ডেশন এমন উদ্যোগ নিয়েছে। ফাউন্ডেশনটি নামায আদায়ের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা হিসেবে মহাসড়কের বিভিন্ন ফুটপাতের পার্শ্বে ও পার্কে জায়নামায রেখেছে। যেন ভ্রমণরত মুসলিমরা প্রথম ওয়াক্তে নামায আদায় করে পুনরায় ভ্রমণ শুরু করতে পারেন। আর জায়নামাযগুলো সংরক্ষণের জন্য রাস্তার পার্শ্বে লোহার বাক্স বসিয়েছে। এসব বাক্সে জায়নামাযগুলো সংরক্ষণ করা হয়। ভ্রাম্যমান এসব নামাযের স্থানে একত্রে ৩০ জন মুসল্লি নামায আদায় করতে পারেন।

রাস্তার পার্শ্বে স্থাপিত লোহার বাক্সে একটি হ্যান্ডেল রয়েছে। হ্যান্ডেলটি ঘুরালেই বাক্স থেকে জায়নামায বের হয়ে আসে। পরে নামায শেষে ওই হ্যান্ডেল ঘুরিয়ে জায়নামায বাক্সের ভেতরে ঢুকিয়ে রাখার ব্যবস্থা রয়েছে। কাতারের রাজধানী দোহার বিভিন্ন রাস্তার পার্শ্বে এবং পার্কে নামাযের এমন সুব্যবস্থায় ভ্রমণকারীরা বেশ খুশি। বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এর প্রশংসা করতে দেখা গেছে। ভ্রমণের সময় প্রথম ওয়াক্তে নামায এবং জামাত সহকারে নামায আদায়ের গুরুত্বের ওপর দৃষ্টিপাত করে কর্তৃপক্ষ এই ব্যবস্থা করেছে। জায়নামায রাখার বাক্স ও জায়নামায রক্ষণাবেক্ষণ ও পরিচালনার জন্য বেশ কিছু কর্মীও নিয়োগ করা হয়েছে।  -দোহা নিউজ।

 

হিজাব বিক্রি করবে লন্ডনের ডিপার্টমেন্ট স্টোর ডেবেনহ্যামস

প্রথমবারের মতো ব্রিটেনে হিজাব বিক্রির ঘোষণা দিয়েছে দেশটির শীর্ষস্থানীয় ডিপার্টমেন্ট স্টোর ডেবেনহ্যামস। মুসলিম নারীদের কেনাকাটার সুবিধার্থে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। প্রাথমিকভাবে লন্ডনে ডেবেনহ্যামসের অক্সফোর্ড স্ট্রিট শাখায় হিজাব পাওয়া যাবে। পরে এ তালিকায় যুক্ত হবে বার্মিংহামের বালরিং, পশ্চিম লন্ডনের শেপার্ডস বুশ এলাকার ওয়েস্টফিল্ড, ম্যানচেস্টারের ট্রাফোর্ড সেন্টার এবং লিচেস্টারের হাইক্রস শপিং সেন্টারের মতো শাখাগুলো।

হেডস্কার্ফ, হিজাব পিন ছাড়াও টপস, জাম্পস্যুট এবং ক্যাপের মতো অন্যান্য পোশাকও মিলবে ডেবেনহ্যামসের এ শাখাগুলোতে। দুনিয়াজুড়ে ডেবেনহ্যামসের শাখাগুলোতে হিজাব বিক্রিতে প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে যুক্ত থাকছে নারীদের রক্ষণশীল পোশাকের বিশেষায়িত ব্র্যান্ড আব (অধন)। হিজাব সামগ্রীকে ‘সমসাময়িক মার্জিত পোশাক’ হিসেবে বর্ণনা করেছে আব। দুবাই, কুয়েত, সৌদি আরব, বাহরাইন, ইরান, ইন্দোনেশিয়া ও মালয়েশিয়ায় ডেবেনহ্যামসের আন্তর্জাতিক শাখাগুলোতে হিজাব বিক্রিতে সহায়তা করবে প্রতিষ্ঠানটি।

হিজাব ব্যবহার করে মুসলিম নারীরা তাদের মাথা ও ঘাড় ঢেকে রাখেন। মুখমন্ডল ঢেকে রাখা নিকাবের সঙ্গে হিজাবের পার্থক্য রয়েছে। ডেবেনহ্যামসের হিজাব বিক্রির সিদ্ধান্তের অবশ্য সমালোচনাও করছেন অনেকে। তবে অন্যরা বলছেন, অন্তর্ভুক্তিমূলক পদক্ষেপ হিসেবে এটা প্রশংসনীয়। যুক্তরাজ্যের বৃহদায়তন ডিপার্টমেন্ট স্টোর হিসেবে প্রথমবারের মতো ২০১৪ সালে হিজাবসামগ্রীতে নজর দেয় জন লুইস। তবে সেটা ছিল শিক্ষার্থীদের ইউনিফর্ম হিসেবে। -দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট ও গার্ডিয়ান।

 

হিজাবের পক্ষে ফ্লোরিডা ইউনিভার্সিটি শিক্ষার্থীদের কর্মসূচি

আমেরিকার অন্যতম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ফ্লোরিডা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির মুসলিম স্টুডেন্টস এসোসিয়েশনের সদস্যদের কিছু তৎপরতা নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে অন ইসলামে। ইসলামের সচেতনতা সপ্তাহে তারা অনেকগুলো ইভেন্টের আয়োজন করেছে। এর একটি হলো- হিজাব। এই ইভেন্টের নামকরণ করা হয়েছে- ‘হিজাব-১০১’। এর লক্ষ্য হিজাবের সত্যিকারের প্রকৃতি সম্পর্কে অমুসলিমদের অবহিত করা।

এসোসিয়েশনের সভাপতি এবং বায়োমেডিকেল সায়েন্সের প্রধান মোনাজাহ বাগদাদি এ প্রসঙ্গে অন ইসলামকে জানান, আমাদের পরিকল্পনার মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে- মানুষকে এ কথা বোঝানো যে, মুসলিম মেয়েরা মাথায় যে স্কার্ফ বা হিজাব পরিধান করে, তা কখনোই নিপীড়নের প্রতীক নয়। বরং এটি নারীবাদের একটি প্রতীক। তিনি আরও বলেন, হিজাব পরা মুসলিম নারীদের জন্য একটি ঐচ্ছিক বিষয় বলে কিছু অমুসলিম মনে করেন। কিন্তু এটি ইসলামের মূল বিশ্বাসের পরিপন্থী।

প্রসঙ্গত বাগদাদি বলেন, এই হিজাবের পেছনে মূলত লুকিয়ে আছে সাহসের বিষয়টি এবং আমাদের কর্মসূচিতে সেটিই দেখানো হবে। প্রত্যেক দিন সকালে একটি মেয়ে যখন ঘুম থেকে জেগে উঠে তার হিজাব পরিধান করেন, তখন তিনি এর মাধ্যমে নিজের ধর্মের প্রতিনিধিত্ব করে থাকেন। মার্কিন সমাজে হিজাবের বিষয়টিকে নেতিবাচক হিসেবে দেখা হচ্ছে। কিন্তু এটি আসলে ইতিবাচক বিষয়।

আমাদের ইভেন্টের মাধ্যমে হিজাব পরিহিত মুসলিম নারীরা বিভিন্ন মানুষের সঙ্গে কথা বলবেন এবং তারা তাদের অভিজ্ঞতা মানুষের সঙ্গে শেয়ার করবেন। এভাবে শিক্ষার্থীরা হিজাব পরা সম্পর্কে অবহিত হতে পারবেন। এসোসিয়েশনের ইসলাম সচেতনতা সপ্তাহ ১০ ফেব্রুয়ারি জুমার নামাযের পরে শুরু হয়। শুক্রবার ইসলামের অনুসারীদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ দিন, মুসলমানদের জন্য সমাবেশের দিন। সপ্তাহব্যাপী এই ইভেন্টের লক্ষ্য হচ্ছে, ইসলাম সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের মধ্যে জ্ঞান বৃদ্ধি করা।

সম্প্রতি সাতটি মুসলিম দেশের নাগরিকদের বিরুদ্ধে অভিবাসন নিষেধাজ্ঞার কারণে কারও কারও কাছে ওই কর্মসূচি কৌশলগত বলে মনে হতে পারে। কিন্তু আসলে বিষয়টি তেমন নয় বলে জানান মোনাজাহ বাগদাদি। তিনি বলেন, আমাদের এই কর্মসূচি নতুন কিছু নয়। প্রতি বছরই আমরা এ রকম কর্মসূচি গ্রহণ করে থাকি। এর লক্ষ্য আসলে সচেতনতা বৃদ্ধি করা। #


Editor: Chowdhury Arif Ahmed
Executive Editor: Saiful Alam
Contact: 14/A, Road No 4, Dhaka, Bangladesh
E-mail: dailydhakatimes@gmail.com
© All Rights Reserved Daily Dhaka Times 2016
এই ওয়েবসাইটের কোন লেখার সম্পূর্ণ বা আংশিক আনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি